ঢাকামঙ্গলবার , ৫ মার্চ ২০২৪
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

মানুষ যখন নষ্ট

মৃধা প্রকাশনী
মার্চ ৫, ২০২৪ ১২:৫৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সুমাইয়া নূর

সমাজ বলে আমি খারাপ, ভীষণ খারাপ। তবে তারা কেন নজর দেয় এই খারাপের দিকে?ভালো মানুষরা তো কখনো খারাপের দিকে তাকায় না।আমি মেয়ে, আমি সবকিছু করতে পারবো না,আমার অধিকারও নেই সবকিছু করার।তবে একটা ছেলের সবকিছু করার অধিকার আছে,তারা যাই করুক সমাজে তাদের কেউ কিছু বলেনা।মেয়ে কি আঠারো বছর বয়স হলেই বোঝা? ছেলেরা পরিবারের দেখাশোনা করে, বাজার করে ইনকাম করে, আর মেয়েরা তারা কিছু করেনা? নাকি তারা কিছু করলে সমাজ সেটা ভালো চোখে দেখেনা?মেয়ে হয়ে সব জায়গায় তাল মিলিয়ে চলি তাই মেয়ে আমি খারাপ, নানা ধরনের লোকের সাথে আমার পরিচয় তাই আমি খারাপ! ওরনা পরিনা তাই আমি খারাপ, ছেলেরা আমি নিয়ে কথা বলার সুযোগ পায়,বাজে মন্তব্য করে,,না না এতে তো ছেলেদের কোন দোষ নেই দোষ তো আমার, কারণ আমি ওরনা পরিনা!সমাজ বলে মেয়ে তুমি দাও সুযোগ তাই ছেলেরা করে তোমাকে ব্যবহার, এতে দোষ কি আছে,যদি পারো নিজেকে পর্দায় জড়িয়ে নাও।আচ্ছা যারা পর্দা করে তারা কি হয়রানির শিকার হয় না? নাকি যারা ওরনা পরেনা তারাই হয়রানির শিকার হয়? আমি কি বোরকা পরিনি? তবুও কেন আমার শারিরীক গঠন নিয়ে এ সমাজের লোকেরা কথা বলেছে?তাদের দৃষ্টিতে কি আমি ধর্ষণ হইনি?যারা বলে মেয়েদের পোশাকের দোষ তাদের বলি বোরকা পরিহিতারা আজ কেন সমাজে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়,চার পাঁচ বছরের বাচ্চারা কেন সমাজের নরপিচাশের ছোবল থেকে রক্ষা পায় না?তারা কি বোঝে এতটুকু বাচ্চার কিসের দোষ ছিল বলতে পারেন? এর কোন উত্তর আছে কি আপনাদের কাছে? একটা ভদ্র পরিবারের মেয়ে যখন শালীন পোশাক পরে রাস্তায় হাটে, তখন কোন ভদ্রলোকের চোখ দিয়ে তুমি তার শরীরের আকার উপলব্ধি করো?একটাও কি মেয়ের দোষ ? নাকি সমাজের এসব মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি আর মানসিকতার ব্যামো,সমাজ আজ তাদের কিছু বলেনা,আজ আমি মেয়ে হয়ে যখন মারমারি শিখি তখন আমি খারাপ, আজ যখন সবার সাথে তাল মিলিয়ে নিজেকে উচ্চে কুলে ধরি তখন মেয়ে আমি খারাপ, যখন বাবা মায়ের ছেলেহীন সন্তান হয়ে বাজার করি,সংসার চালাই,ইনকাম করি তখন সমাজের চোখে আমি খারাপ।

 

অথচ যারা ধর্ষণের বিরুদ্ধে আর দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে সমাজে দিনের বেলা আন্দোলন করে বেরায়,,,তারাই আবার রাতে নিজের কুদৃষ্টি দিয়ে মেয়েদের নিয়ে খারাপ চিন্তা করে, তাদের চাহনিতে তারা ধর্ষণ করে।কি অদ্ভুত সত্য!আজ তারাই সমাজের চোখে বিশাল ভালো মানুষ! তারা যখন একটা মেয়েকে নিয়ে এসব চিন্তা করে,যা নয় তাই একটা মেয়েকে কথা শুনিয়ে দেয়, তাদের কাছে খুব জানতে ইচ্ছে করে, তার কি মা বোন নেই?আমাকে নিয়ে আজ সে বাজে চিন্তা করছে একদিন তার মতো বাজে চিন্তা তো অন্য পুরুষ তার মা বোনকে নিয়ে করতে পারে?নাকি পারেনা? অবশ্য তারা যদি নিজেকে দুধে ধোয়া তুলসীপাতা মনে করে সেখানে কিই বা বলার থাকে।যারা আজ মেয়েদের নিয়ে খারাপ কথা বলে তাদের নিয়ে খারাপ চিন্তা করে,তাদের মনে করিয়ে দিতে চাই তারাও কোন না কোন আমার মতো এক নারীর গর্ভেই জন্ম!এটা সে অস্বীকার করতে পারবে?একটা মেয়েকে অসম্মান করা মানে তার গর্ভধারিণী মাকে অসম্মান করা।যদি তার মনে এই কথাটুকু দাগ না কাটে তাহলে সে কি করে জন্ম গ্রহণ করেছে তা নিয়ে আমার দ্বিধা আছে,সে কি আকাশ থেকে পরেছে নাকি এমনি এমনি পৃথিবীতে এসেছে! দ্বিক্কার জানাই এইসমস্ত নরপিশাচ আর সমাজের মানুষকে যারা নিজের দৃষ্টিভঙ্গি না বদলিয়ে অন্যের সমালোচনায় ব্যস্ত।সমাজটাকে আমরা একা কখনো বদলাতে পারবোনা।সবাই নিজের কথা পরিবারের কথা ভেবে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দৃষ্টিভঙ্গি বদলালে সমাজটা বদলে যাবে।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial