ঢাকাশনিবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

বিজয় দিবসে ইসলামের দিকনির্দেশনা

মৃধা প্রকাশনী
ডিসেম্বর ১৬, ২০২৩ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হাসান রায়হান রাশিদী

যখন বিজয় আসবে অর্থাৎ বিজয় দিবসে/১৬ ডিসেম্বরে ঈমানের দাবীতে সত্যবাদী মুমিন দুটি কাজ করবে। ১। রবের প্রশংসায় তাসবিহ ও পবিত্রতা বর্ণনা করবে। ২। রবের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করবে। (সুরা আন-নাসর,আয়াত :৩)

গান-বাজনাযুক্ত কোন রেলি বা সমাবেশ করবে না। গান-বাজনাযুক্ত কোন রেলি বা সমাবেশে যোগ দিতে পারবে না। গান-বাজনাযুক্ত কোন রেলি বা সমাবেশের সমর্থন করতে পারবে না। বরং এগুলোকে প্রতিহত করতে হবে। হয়তো হাতের দ্বারা অথবা মুখে বলার দ্বারা।
এই দুইটার কোনটা না পারলে অন্তরে সর্বোচ্চ ঘৃণা জাগরুক রাখতে হবে এটা ঈমানের সর্বনিম্ন স্তর।

রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যখন তোমাদের কেউ কোন মন্দ কাজ হতে দেখে সে তা হাত দ্বারা প্রতিহত করবে। যদি এতে সক্ষম না হয়, তাহলে বলার মাধ্যমে। এতেও সম্ভবপর না হলে সে অন্তরে ঘৃণা পোষণ করবে। আর এটা হল ঈমানের সবচেয়ে নিম্নতম স্তর। (মুসলিম শরীফ ৭৮/আবু দাউদ ১১৪০/তিরমিজি -২১৭৬/নাসাঈ ৫০২৩)

আর গান-বাজনা তো মুনকার, হারাম, মন্দ ও জাহান্নামের কারণ। কারণ এটা সুস্পষ্ট বিষয়। আল্লাহ তায়ালা বলেন, “কিছু মানুষ এমন যারা অজ্ঞাতভাবে অবান্তর কথা (গান-বাজনা) ক্রয় করে যেন তা দিয়ে মানুষকে পথভ্রষ্ট করতে পারে। আর আল্লাহর বাতলে দেওয়া পথনির্দেশ নিয়ে ঠাট্টা তামাশা করে”। (সুরা লুকমান, আয়াত ৬)

সুতরাং আমাদেরকে একজন মুমিন হিসেবে এগুলোকে পরিহার করতে হবে। শুধু বিজয় মিছিল বা রেলি হতে পারে। আর দেশের জন্য প্রাণ উৎসর্গকারীদের জন্য দোয়া তো অবশ্যই করা উচিত। তারা এই দোয়ার হকদারও বটে। সকলকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial