ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

দীপাবলি

মৃধা প্রকাশনী
ডিসেম্বর ৭, ২০২৩ ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সেঁজুতি মুমু

সবাইকে দীপাবলির অনেক অনেক শুভেচ্ছা। দীপাবলি আলোর উৎসব। আজ অমাবস্যার রাতে চারদিক প্রদীপের আলোয় উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। বাচ্চারা এবং অনেক বড়রাও বিভিন্নরকম বাজি পোড়ানোয় মেতে উঠবে, আত্মীয় স্বজনে মুখরিত হবে প্রতিটি পরিবার। বাঙালি হিন্দু পরিবারে এইদিনে সন্ধ্যায় কলাগাছে মৃতদের আত্মার শান্তি কামনায় প্রদীপ জ্বালানো হয় এবং রাতে মহাসমারোহে দেবী কালির পুজা হয়। তবে হিন্দি সিরিয়ালে দেখেছি এইদিনে দেবী লক্ষ্মী ও গনেশ দেবতার পুজা করা হয়। এ পিছনের মুলকথা আমার জানা নেই। যতটুকু দেখেছি তাই বললাম।
অনেকেই দেখি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে, ” দীপাবলিতে বাজি কিনে টাকা নষ্ট না করে গরীবদের দান করুন অথবা কালি পুজায় পাঠা বলি দিয়েন না ইত্যাদি ইত্যাদি।” আমি তাদের উপহাস করছি না কিন্তু শুধু জানতে চাই তাদের কয়জন নিজের জীবনে এই কথাগুলো মেনে চলেন? যাই হোক বলিপ্রথা বৈধ কি অবৈধ তা নিয়ে আলোচনায় আমি যাব না। ওসব নিয়ে কথা বলতেও চাই না কারণ যার যেমন বিশ্বাস সে সেরকম ভাবে পালন করবে। আমি শুধু বলতে চাচ্ছি আপনি যদি দীপাবলিতে ৩ টাকা খরচ করেন তাহলে তার থেকে একটাকা গরীবদের দিয়ে, ২ টাকা নিজের জন্য খরচ করুন। এতে নিজের আনন্দ মাটিও হবে না, আবার অন্যকেও আনন্দ দেয়া হবে। আপনি পাঠা ব*লি দেন আমার সমস্যা নাই। কিন্তু ওর সামান্য কিছু অংশ একজন গরীব বাচ্চাকে বা একটা পরিবারকে দান করুন। অথবা আপনি ৫০০টাকার বাজি কিনলেন তার থেকে অন্তত ৩০/৪০ টাকার বাজি একটা গরীব বাচ্চাকে কিনে দিন। এতেই দেখবেন কি স্বর্গীয় শান্তি অনুভুত হবে। আমি নিজে যে এত জ্ঞান দিচ্ছি, নিজে যে এর কত শতাংশ কথা মেনে চলব তা নিজেও বলতে পারছি না!

দীপাবলিতে আমরা সবাইকে এই বলে শুভেচ্ছা জানাই যে, ” প্রদীপের আলোর মতো আপনার জীবনও আলোকিত হোক, সকল অন্ধকার দূর হয়ে যাক ” ইত্যাদি। আচ্ছা এই যে আলো জীবনে আসবে এই আলো কি কোনো মানুষ নাকি কোনো আশা? আমার মতে আমরা নিজেরাই আমাদের জীবনের আলোকবর্তিকা। আমাদের অ*মানিশাময় জীবন একমাত্র আমরাই পারি প্রদীপ হয়ে আলোকিত করতে। আমি এখন এমন একজনের উদাহরন দিব যার নাম শুনলে সকল মানুষ না শিটকায়, বিদ্রুপ করে। তবে আমি তার জীবনের অতীতের জন্য তাকে আলোকবর্তিকা বলব না। আমি তাকে আলোকবর্তিকা বলব তার বর্তমানের জন্য। তিনি আর কেউ না একসময়ের নীল সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও বর্তমানে বলিউডের অন্যতম নায়িকা “সানি লিওন”। হাসি পাচ্ছে তাই না? হু স্বাভাবিক কারন তার অতীত ছিল এরকম। তিনি নীল সিনেমার অভিনেত্রী ছিলেন। কিন্তু আমি তার বর্তমানের কথা বলছি৷ নিজেকে সেই অন্ধকার দুনিয়া থেকে সরিয়ে নিয়ে আজ তিনি একজন মা, একজন অন্যতম সমাজসেবক। এভাবেও ফিরে আসা যায়। আমরা সামান্য কিছু হলেই জীবন শেষ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেই। কিন্তু সানি লিওনকে দেখুন। তিনি কিরকম ভায়াবহ অতীত থেকে নিজেকে ফিরিয়েছেন। নিশ্চয়ই সহজ ছিল না এই ফিরে আসা। আমি আপনাদের কাউকেই সানি লিওন হতে বলছি না। আমি খালি উদাহরন দিলাম। হ্যা এখন অনেকেই বলবেন,” অন্য কারো উদাহরণ কি দেওয়া যেত না?” আমি উত্তরে বলব আমার কাছে বর্তমানে এই উদাহরণটাই ভালো লাগল তাই দিলাম। যাইহোক আমি বলতে চাই আমরা সবাই যেন এই দীপাবলির শুভ দিনে নিজেই নিজের জীবনের অমানিশার বিরুদ্ধে আলোকবর্তিকা হয়ে উঠতে পারি। এভাবে আলো জ্বলুক, শুভ হোক সব। শুভ দীপাবলি।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial