ঢাকাশনিবার , ২ ডিসেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

দিন দিন মোবাইল আমাদের যন্ত্রমানবে রুপান্তর করছে

মৃধা প্রকাশনী
ডিসেম্বর ২, ২০২৩ ১০:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

আপনি কি জানেন আপনার সব থেকে বড় এবং কাছের শত্রু কে?

ভাবতেছেন শত্রু বললাম, কোনো মানুষেই হবে। কিন্তু কোনো মানুষ আপনার সব থেকে কাছের শত্রু নই। আপনার সব থেকে কাছের শত্রু হচ্ছে, আপনার পকেটে থাকা মোবাইল নামক যন্ত্রটি হচ্ছে, সব থেকে কাছের শত্রু। বালিশের সাথে মাথা রেখে একটু চিন্তা করে দেখুন, মোবাইল নামক যন্ত্রটাই হচ্ছে আপনার সব থেকে কাছের শত্রু। কিভাবে শত্রু এখন বলতেছি। আপনার হাতে যখন এন্ড্রুয়েট ফোনটি ছিলো এই তো পাঁচ, সাত বছর আগের কথা। তখন ঘুম থেকে উঠলে একজন শিশু খেলা ধুলো করতো বা মাদ্রাসা,
স্কুলে চলে যেতো। কিন্তু এখন ঘুম থেকে উঠলেই মোবাইলে হয়তো কাটুন বা গেমস খেলে। একজন ছাত্র বা ছাত্রীর কথাই বলি, আগে হয়তো ঘুম থেকে উঠলে ফ্রেশ হয়ে বই খুলে পড়তে বসতো, কিন্তু এখন ঘুম থেকে উঠে দেখে মোবাইলটা চার্জ হয়েছে, নাকি মাথার কাছে আছে। মোবাইলটা ধরেই কাথা বা কম্বলের নিচে বসে হয় ফেজবুকে ঢুকে দেখবে কোন বান্ধবী কোন কমেন্ট দিয়েছে বা কোন ছেলে কি কমেন্ট দিয়েছে। কেউ সুন্দর বললে মন ভালো হয়ে যায়, কমেন্টে একটু খারাপ বললে বা লাভ রিয়েক্টের পরিবর্তে হা হা দিলেই সেন্টি খেয়ে সারাদিন চলে যায়।
কেউ বা প্রেমের সম্পর্কে জড়ালে বই না পড়ে মোবাইলের এসএমএস পড়তে পড়তে বিয়ে পাশ করে ফেলে। এখন আসি বন্ধুদের নিয়ে।
স্কুলে বা কলেজে ছাত্র ছাত্রী যখন যেতো তখন এক সাথে বসে গল্প, চায়ের আড্ডা দিতে দিতে বিকেল পার করে দেয়। এখন এক সাথে হলে সকলে পাশে বসে ঠিকি তবে বন্ধুদের সাথে কথা না বলিয়েও মোবাইল তার সুন্দর রুপের দিকে তাকিয়ে থাকতে বাধ্য করে। আড্ডা ঠিকি দেওয়া হয় তবে সবাই বোবা বেশে থাকে আর ফানি কোনো কিছু দেখলেই খলখলিয়ে হেসে উঠে। প্রতিটা ক্ষেত্রে মোবাইল আমাদের শত্রুর মতো ব্যবহার করে। শত্রু যেমন ছিনতাই করে তার কথা শুনতে বাধ্য করে, তেমনী মোবাইল নামক শত্রুটিও আমাদের তার কথা শুনতে বাধ্য করে। আপনি ঘুম থেকে উঠে, ফ্রেশ হওয়া থেকে শুরু করে খেতে গেলে, ওয়াশরুমে গেলে, হাঁটার সময়, বাস, রিক্সা, লঞ্চ, ট্রাক, বিমান, রকেট, অফিসে, খেতে, জলে, পাতালে ঘুমাতে গেলে প্রতিটা ক্ষেত্রে মোবাইল, মোবাইল, মোবাইল। মোবাইল আমাকে, আপনাকে, আমাদের এমন ভাবে বশ করে নিয়েছে, এমন ভাবে কালো জাদু করেছে এখন মোবাইল বিহীন আমি যেনো শূন্য। এক মিনিট মোবাইল ছাড়া নিজেকে খালি খালি মনে হয়। আমাদের মুখ থালতেও , মুখে কথা বলার শক্তি থাকতেও আমরা প্রতিটা মানুষ যেনো বোবা মানব । আমাদের হাত আছে কিন্তু সেটা দ্বারা মোবাইল ব্যবহার করতেছে। আমাদের চোখ আছে কিন্তু সেটা দ্বারা মোবাইল দেখতেছে। আমাদের মুখ আছে কিন্তু সেটা দ্বারা মোবাইল কথা বলতেছে। আমাদের কান আছে কিন্তু সেটা দ্বারা মোবাইল শুনতেছে। পুরো দেহটাই মোবাইলের কন্ট্রোলে। প্রতারণা, সিনতাই, বাটপারি,
ধোঁকা, মায়া, আবেগ, ভালোবাসা, কান্না, হাসি সব কিছু মোবাইল করে দিচ্ছে। চিঠি লিখে ভালোবাসা প্রকাশ হতো, অভিমান হলে ছলে বলে কৌশলে ভালোবাসার মানুষের অভিমান ভাঙ্গাতো। কিন্তু এখন এসএমএস দ্বারা কথা হয়, কিছু হলে ব্লগ মেরে শেষ। নতুন কারো সাথে উধাও রাগ, অভিমান ভাঙ্গানোর সুযোগটাই হয়ে উঠে না। যতোই বলি মোবাইল থেকে দূরে সরে দাঁড়াব কিন্তু মোবাইল তাতো বেশি তার থেকে মায়া বাড়িয়ে ফেলে। তাই এখন মানুষ নামক শব্দটা থাকলেও প্রতিটা মানুষ এখন যন্ত্রমানব। যতো বলি ধরবো না মোবাইল, কিছু সময় পার হতে না হতেই মোবাইল বলে ছুঁয়ে দেখ আমায়। মোবাইলের বিষাক্ত ছোবলের বিষ গোটা বিশ্বের মানব জাতীর ভিতরে ঢুকে পুরো দেহ বিষাক্ত হয়ে গেছে।
ধরবো না, ধরবো না যত বলি,
মোবাইল বলে আমায় রেখে কোথায় পালিয়ে যাবি।
যত সরবে আমার থেকে,
তত মায়া করে দিবো তোর বুকেতে।

তামিম হোসাইন
শিক্ষার্থী ঢাকা কলেজ

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial