ঢাকাশুক্রবার , ১৭ নভেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

সমাজজীবনে সংস্কৃতির প্রভাব

মৃধা প্রকাশনী
নভেম্বর ১৭, ২০২৩ ১০:১১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সংস্কৃতি বলতে আমরা সামগ্রিক জীবনপ্রণালিকে বুঝি। মানবসৃষ্ট সবকিছুর সমষ্টিকে সংস্কৃতি বলে। আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থায় সব ধরনের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে মানুষের মধ্যে প্রচলিত নানা রকম বিশ্বাস, অনুষ্ঠান, জ্ঞান, আইন, রীতিনীতি, প্রতিষ্ঠান কার্যাবলি, নেতৃত্ব, ধর্ম ও শিল্প সাহিত্য ইত্যাদির সম্মিলিত রূপই মূলত সংস্কৃতি।

সংস্কৃতির সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য সংজ্ঞা প্রদান করেছেন ই. বি. টেইলর (E. B. Tylor). তিনি তার ‘Primitive Culture’ গ্রন্থে বলেন, “সমাজের সদস্য হিসেবে মানুষের অর্জিত জ্ঞান, বিশ্বাস, শিল্পকলা, নৈতিকতা, আইন, রীতিনীতি, আচার-আচরণ এবং অন্য যেকোনো দক্ষতা ও অভ্যাসের জটিল সমষ্টিই হলো সংস্কৃতি।”

সমাজে বাস করতে হলে একজন মানুষকে সমাজ প্রত্যাশিত আচরণ করতে হয়। সংস্কৃতির মাধ্যমে মানুষ সামাজিক আচার-আচরণের এক নির্দিষ্ট পদ্ধতি বা ধারা লাভ করে থাকে। সমাজজীবনে বিচিত্র ও বহুমাত্রিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। সংস্কৃতির প্রভাবেই মানুষ সমাজজীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনায়াসে স্বাভাবিক আচরণ করতে পারে। মানুষের অভ্যাস ও রুচিবোধ জাগ্রত ও পরিচালনার ক্ষেত্রে সংস্কৃতির কার্যকর ভূমিকা বিদ্যমান। সংস্কৃতি একজন মানুষকে পূর্ণভাবে সামাজিক জীবে পরিণত করে তোলে।

সময়ের সাথে সাথে মানুষের আচার আচরণ, রীতিনীতিরও পরিবর্তন ঘটে। যা প্রভাব ফেলে সংস্কৃতির উপর। পূর্বে যে জিনিসটা সমাজে যেভাবে প্রভাব বিস্তার করতো বর্তমান সময়ে সে জিনিসটা সেভাবে প্রভাব বিস্তার করে না। বিশেষ করে একবিংশ শতাব্দীর বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় সমাজে সংস্কৃতির উপর অনেক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধন বদলে দিয়েছে পৃথিবীকে। যার প্রভাব পড়েছে সংস্কৃতির উপর।

মোবাইল ফোন, স্যাটেলাইট চ্যানেল, অনলাইন সংবাদপত্র, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন বিনোদন সাইট এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে মানুষ দ্রুত ও কম সময়ে সারাবিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের সাথে পারস্পরিক যোগাযোগ, ব্যবসা-বাণিজ্য ও নানা কাজ সম্পাদনা করতে সক্ষম হচ্ছে। এতে তাদের চিন্তাধারা, সংস্কৃতি, পরিবেশ, জীবনধারা, সমাজ, অর্থনীতি, ধর্ম ইত্যাদি সম্পর্কে জানার সুযোগ হচ্ছে। পারস্পরিক আদান-প্রদানের মাধ্যমে মানুষ নিজের অজান্তেই বিভিন্ন বিষয়ে অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। জীবনযাত্রা, খাবার-দাবার, পোশাক-পরিচ্ছদ ইত্যাদির ওপর এর প্রভাব দেখা যাচ্ছে। এভাবে ব্যক্তি মানুষ পরিণত হচ্ছে বৈশ্বিক ব্যক্তিত্বে, ধারণ করছে বহুজাতিক বৈশিষ্ট্য। যা আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতি নয়, তাও বৈশ্বিক সংস্কৃতি দ্বারা দারুণভাবে প্রভাবিত হচ্ছে।

সামাজিক উন্নয়ন ও গতিশীলতার ক্ষেত্রেও সংস্কৃতি গুরুত্ব বহন করে। সংস্কৃতির দ্বারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে মানুষের চিন্তাচেতনা, ধ্যানধারণার পরিবর্তন সূচিত হয়। বিশেষ করে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের ফলে মানুষের মধ্যে আধুনিক চিন্তা ও চেতনার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সমাজজীবনে প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই সংস্কৃতির প্রভাব পরিলক্ষিত হয়। সংস্কৃতি সমাজজীবনকে অনেক উন্নত ও গতিশীল করেছে। ফলে মানুষের জীবনযাপন পদ্ধতি অনেক সহজ হয়েছে। তাই অকপটে স্বীকার করতেই হয় সমাজজীবনে সংস্কৃতির প্রভাব অত্যন্ত ব্যাপক।

নাম: তাহমিনা আক্তার
বিভাগ: সমাজবিজ্ঞান
প্রতিষ্ঠান: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
ই-মেইল: tahminaakter59467@gmail.com

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial