ঢাকারবিবার , ৫ নভেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

“ফেইসবুক নীরবে কতটা ক্ষতি করছে”

মৃধা প্রকাশনী
নভেম্বর ৫, ২০২৩ ৯:৩২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এখন ফেইসবুক ঢুকে গেছে।আমরা আমাদের অনেক মূল্যবান সময় এই ফেইসবুকে ব্যয় করে ফেলি।যা আগে ছিল নাহ।আজ থেকে ৩ বা ৪ বছর পূর্বে মানুষের প্রাত্যহিক জীবনে ফেইসবুক ছিল না। তখন সেই সময়টাতে নিজেদের ভিন্ন ভাবে প্রকাশ করা হত,কেউ ছবি আঁকত অবসরে,কেউ বা ভিন্ন ধরনের শৈল্পিক কাজ করত,আবার কেউ বা ধর্মীয় বিষয়গুলোতে বেশি সময় দিত। ওইসব সময় এখন ফেইসবুক একাই দখল করে ফেলেছে।পূর্বে বন্ধুদের আড্ডায় যেমন হাসিখুশি, চঞ্চলতা থাকত তা এখন আর দেখা যায় না,সবাই এই অনলাইন, ফেইসবুক নিয়ে ব্যস্ত।একসাথে হলে পাশাপাশি বসেও সেই ফেইসবুকে চ্যাটিং করতেই সাচ্ছন্দ্য বোধ করে।আমাদের মাঝে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটিয়ে দিল এই ২০০৪ সালে আবিষ্কৃত ফেইসবুক। আমরা ভার্চুয়াল জগতে পড়ে গেলাম,ফেইসবুকে কথা হলেও সামনাসামনি আন্তরিকতা আর নেই।সবার মাঝে বিষণ্নতা, ডিপ্রেশন তাহলে কি ফেইসবুকই এনে দিচ্ছে ? সারাদিন ফেইসবুক ঘেঁটে লাভ-লস বুঝি নাহ কিন্তু সেখানে সময় দিতে হবে এমনটাই হয়ে যাচ্ছে আমাদের মাঝে।

আরো একটা বৃহৎ ভাবনার বিষয় হল, আমরা স্বাভাবিক মুডে থাকলে ওই সময়ে ফেইসবুক ঘেঁটে কোন একটা খবর দেখি, যা দেখে মন খারাপ হয় মুহূর্তেই।হয়ত পড়ার ফাঁকে ফেইসবুকে যাচ্ছি, তারপর আর পড়ার মনোযোগ থাকছে না।সাধারণত,ঘুম থেকে উঠে আল্লাহর নাম নিয়ে কাজ শুরু করি,ধর্মীয় চর্চা করি,আর এখন এমন হয় যে ঘুম ভেঙে যাওয়ার পর দীর্ঘ সময় এই মোবাইল, ফেইসবুক, মেসেঞ্জার চেক করা। ৫মিনিট ফেইসবুক চালাতে গিয়ে ৫ ঘন্টাও হয়ে যায়,এতটাই আসক্তি এখনকার জেনারেশনে।সময়কে মূল্যহীন করে ফেলা হচ্ছে এই ফেইসবুক চালিয়ে। সারারাত ফেইসবুক চালিয়ে সজাগ থেকে নিজেদের অজান্তেই বড় বড় রোগের বাসা করা হচ্ছে শরীরে,চোখের জ্যোতি কমে যাচ্ছে,রাতের তাহাজ্জুদ নামাজ বিলুপ্ত ও গুরত্বহীন হচ্ছে এই রাত জেগে।সময়ের কাজ সময়ে করা হয়না।পড়াশোনায় ব্যাপক ঘাটতি,এমনও হয় অনলাইন ঘেঁটে সময় পেলেই কেবল পড়তে বসে,যা অবসরে করার কথা তা না করে পড়ার সময়ে বা অন্যান্য গুরত্বপূর্ণ কাজে ফেইসবুক ব্যবহার হচ্ছে, এভাবে বাড়ছে আবার অজ্ঞতাও। ঠিক কতটা আসক্তি হলে এই করুণ অবস্থায় পৌঁছায়?
এই জেনারেশনেই যদি এমন অবস্থা হয়,আগামী ৫বছর পর কেমন হতে পারে এই আসক্তি? স্বাভাবিক জীবন তো বিপন্ন হওয়ার পথে।মানুষের আবেগ ফেইসবুকে,, যেমন অনুভূতি প্রকাশ করে বাস্তবে ঠিক কতটা সত্যতা আছে তার? মনে প্রশ্ন জাগে।ফেইসবুক যতটা না উপকার করছে তার চেয়ে অনেক গুণ বেশি অপকার করে যাচ্ছে, আমরা বুঝিও কিন্তু সরে আসতে পারছি না। এভাবেই নীরবে থেকে থেকে অসীম পরিমাণ ক্ষতি করে যাচ্ছে।আমরা যদি এর পরিবর্তন না আনি তাহলে আগামীর সময় বড্ড কঠিন হয়ে যাবে,আসক্তি সরিয়ে স্বাভাবিক ফেইসবুক ব্যবহার হোক,সেটাই কাম্য। আর এটা সম্ভব আমাদের দ্বারাই,আমাদের সচেতনতা, মানসিকতায় পরিবর্তন এনেই।

জান্নাতুল ফেরদৌস পায়েল
বাংলা বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
সদস্য, বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial