ঢাকারবিবার , ২৯ অক্টোবর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

টাইম ট্রাভেল এবং এর বৈজ্ঞানিক ভিত্তি। – ১

মৃধা প্রকাশনী
অক্টোবর ২৯, ২০২৩ ১০:২০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

টাইম ট্রাভেল বা সময় যাত্রা নিয়ে মানুষের মধ্যে আগ্রহের কমতি নেই। Interstellar, Back To Future এবং Predestination ইত্যাদি সিনেমার মধ্যে টাইম ট্রাভেল বিষয়টি অনেক সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এসব সিনেমায় দেখানো হয়েছে কিভাবে একজন মানুষ একটি টাইম মেশিনে বসে চলে যাচ্ছে অতীত কিংবা ভবিষ্যতে। এখন আসল বিষয়ে আসি, সত্যিই কি সময় যাত্রা করা সম্ভব এবং বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে তা কতটা যৌক্তিক?
যদি এক কথায় উত্তর দেওয়া হয়, বিজ্ঞানের মতে টাইম ট্রাভেল বা সময় যাত্রা করা সম্ভব।

সময়যাত্রা বলতে বোঝায় সময়ের অতীতে বা ভবিষ্যতে যাওয়া।

ভবিষ্যতে সময় যাত্রা :
১. স্যার আলবার্ট আইনস্টাইনের থিওরি অফ রিলেটিভিটি অনুযায়ী কেউ যদি আলোর গতিতে ভ্রমণ করে তাহলে তার জন্য সময় স্থির হয়ে যায়। সাধারণ উদাহরণ দিয়ে বলা যায় যদি কেউ পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে একটি রেল লাইন স্থাপন করে, এবং সেই ট্রেনের গতি যদি আলোর গতির সমান হয় ( আলোর গতি 299 792 458 m / s) তাহলে ট্রেনে অবস্থিত সেই ব্যক্তির সময়ে স্থির হয়ে যাবে। অর্থাৎ বাকি পৃথিবীর সময় চলে গেলেও সেই ব্যক্তির ক্ষেত্রে কোন সময় চলে যাবে না অর্থাৎ তার বয়সের কোন বেশি বা কম হবে না। যদিও বিষয়টি তাত্ত্বিক। ব্যবহারিক পরীক্ষা করা অনেকটাই কঠিন বা বর্তমান সময়ে অসম্ভব। কেননা আলো হলো সবচেয়ে দ্রুততম বস্তু আমাদের এই মহাবিশ্বে। আর কোন বস্তু আলোর গতি অর্জন করতে হলে তার ভর অবশ্যই শূন্য হতে হবে। যা আপাত দৃষ্টিতে অসম্ভব।
২. ভবিষ্যতে সময় যাত্রা করার আরেকটি উপায় হলো ওয়ার্মহোল। বিষয়টি অনেকের কাছে নতুন মনে হলেও তাত্ত্বিকভাবে ওয়ার্মহোলের মধ্য দিয়ে সময়যাত্রা করা সম্ভব। আসলো ওয়ার্মহোল বিষয়টা কী। এটি হলো একটি শর্টকাট পদ্ধতি। অর্থাৎ দূরে দূরে অবস্থিত দুটি জায়গার শর্টকাট। এটা নিয়ে এখনও গবেষণা চলছে।
তবে বিভিন্ন সাইন্স ফিকশন মুভিতে যেভাবে টাইম মেশিন আবিষ্কার করে টাইম ট্রাভেলের বিষয়টি প্রদর্শিত হয় তা বৈজ্ঞানিকভাবে অনেকাংশেই অসম্ভব বা অবান্তর। সময়যাত্রা বা টাইমট্রাভেল করা অনেক কঠিন বা অসম্ভব মনে হলেও বৈজ্ঞানিকভাবে এটি সম্ভব।
অতীতে সময় যাত্রা :
বৈজ্ঞানিক বা তাত্ত্বিকভাবেই ভবিষ্যতে সময়যাত্রা করাকে যেমন সম্ভব বলে মনে হয় কিন্তু অতীতের সময় যাত্রা করতে গেলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা বা প্যারাডক্সের সৃষ্টি হয়। ধরুন আপনি কোন ভাবে অতীতে গেলেন এবং অতীতে কি আপনি আপনার দাদাকে মেরে ফেললেন তাহলে আপনার বাবা কিভাবে আসলো আর আপনি কিভাবে অতীতে গেলেন। এটাকে বলা হয় গ্র্যান্ডফাদার প্যারাডক্স। অর্থাৎ তাত্ত্বিকভাবে অতীতের সময় যাত্রা করা অসম্ভব।

মেহেদী হাসান
রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial