ঢাকামঙ্গলবার , ২৪ অক্টোবর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

নীলার রহস্য পার্ট -০৩

মৃধা প্রকাশনী
অক্টোবর ২৪, ২০২৩ ৮:১১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজের স্ত্রীকে অন্যের বিছানায় দেখতে কারই ভালো লাগবে?
এসব কিছু ভাবছিলাম হঠাৎ  রাহাত বারান্দা থেকে ফিরে এলো। মুখে তার কেমন পিশাচের মতো হাসি; কেমন একটা অদ্ভুত চাহনি যেন তার চোখে-মুখে। যেন নীলার সুস্বাদু মাংস সে খুব মজা করেই খেয়েছে। রাহাত আর আমি খুলনা মেডিক্যালে পড়তাম; স্বভাবতই লাশকাটা, পোস্টমর্টেম এসব নিয়ে রাহাত খুব একটা ভয় পেত না। মেডিক্যালে পড়াশোনা করলেও আমি কর্পোরেট সেক্টরে কর্মরত আছি। কিন্তু রাহাতের ছোটবেলা থেকেই ইচ্ছে ছিল ডক্টর হওয়ার৷
একদিন রাত সাড়ে ৩ টা নাগাদ একটা লাশ আসে মর্গে। রাহাত আর আমার ইন্টার্নি চলছিল। তো রাতেই হস্পিটাল বয় আমাদের দুজনকে ডেকে নিয়ে যায়। লাশকাটা ঘরে ঢুকেই ডানপাশের বেডে দেখতে পেলাম, একটা সুন্দরী মেয়ের লাশ,যেন তার রুপ যৌবন এখনও আগের মতোই তাজা।
জানতে পারলাম মেয়েটা জেদ করে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। রাহাতের দৃষ্টি বারবার যেন মেয়েটার লাশের দিকেই যাচ্ছে; তার চাহনিতে কেমন একটা মাদকতা পেলাম। তো রাহাত যেহেতু  লাশকাটা-কাটিতে পারদর্শী, এ লাশটার পোস্টমর্টেমও তাকেই করতে বলে আমি বেরিয়ে গেলাম! কিন্তু রাহাতের আচরণে এমন মনে হচ্ছিল যেন লাশটাকে  দেখে সে কেমন একটা আত্মতৃপ্তি পাচ্ছে,যেন এক্ষুণি সে মেয়েটার মাংস চিবিয়ে চিবিয়ে খাবে। যাইহোক আধঘন্টা পর সে বেরিয়ে এলো। রাহাত বলল, সে ক্লান্ত তাই  রুমে যাবে। একটুপর আমি লাশকাটা ঘরটায়  যাই, গিয়ে যা দেখলাম তা আসলে খুবই ভয়ানক ছিল।
আমি গিয়েই দেখতে পেলাম, মেয়েটার শরীরের মাংসগুলো চারদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।লাশের বিভিন্ন অংশে মাংস উধাও, মগজ টা একটা থালায় আধখাওয়া।  এমন বোধ হচ্ছিল যেন কোনো হিংস্র জানোয়ার এসে মেয়েটাকে খাবলে খেয়েছে। এখন আঁচ করতে পারলাম, আসলে সেদিন নীলার মাংস খেয়েও রাহাতের আচরণে কেন কোনো পরিবর্তন নেই,কেন নীলার মাংস সে খুব তৃপ্তি সহকারে খেলো। রাহাত আসলে একজন নরখাদক। নরখাদক হওয়ার পেছনে কী কারণ লুকিয়ে আছে, কেনই সে মর্গের মেয়েটাকে দেখে বিচলিত না হয়ে বরং লালায়িত হয়েছিল সে রহস্য এখনো অজানা। ক্রোধ, ঘৃণার দ্বন্দ হবে সামনে
চলবে —
লেখক: হৃদয় ভূইয়া
ইতিহাস বিভাগ
ঢাবি
Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial