ঢাকাসোমবার , ২৩ অক্টোবর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

ঝুকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুঁটি পরিবর্তন প্রসঙ্গে

মৃধা প্রকাশনী
অক্টোবর ২৩, ২০২৩ ১১:৫০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

জুবায়ের আহমেদ

একটা সময় পর্যন্ত হাতপাখা এবং প্রকৃতির নির্মল হাওয়াই ছিলো দেশের মানুষের গরমে শীতল হওয়ার ব্যবস্থা। ধীরে ধীরে বিদ্যুৎ সুবিধা বৃদ্ধির ধারাবাহিকতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক কর্মযজ্ঞের ফলে বাংলাদেশ এখন শতভাগ বিদ্যুতায়নের দেশ। এই বিশাল সফলতার মাধ্যমে কল কারখানা, অফিস আদালত, বাসা বাড়ী সহ সব কাজেই বিদ্যুৎ সুবিধা পাওয়ার বিপরীতে অসাবধানতাবশত ও অনিয়ন্ত্রিত বৈদ্যুতিক সংযোগে দূর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। সরকার দেশে শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে পারলেও চলাচল রাস্তার পাশ দিয়ে কিংবা রাস্তার উপরে বৈদ্যুতিক খুুঁটি ও ঝুলন্ত তারের নিরাপদ অবস্থান তথা জনসাধারণের জানমালের ক্ষতিসাধন যাতে না হয়, সেরূপ নিরাপদ বৈদ্যুতিক তার নিশ্চিত করতে পারেনি, যার ফলে ঝড় বৃষ্টির মৌসুমে অরক্ষিত বৈদ্যুতিক তার বিচ্ছিন্ন হয়ে বহুমানুষের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

শহর কিংবা গ্রামের অলি গলিতে স্থিত বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো পুরাতন হয়ে ঝুকিপূর্ণ হয়ে গেছে। বিশেষ করে শহরের অলি গলিতে নতুন রাস্তা তৈরীর ফলে খুঁটিগুলোর উচ্চতা কমে গেছে। রাস্তা সংস্কার যেমন জরুরী ছিলো, তেমনি বৈদ্যুতিক খুঁটির পরিবর্তনও জরুরী ছিলো, কিন্তু কর্তৃপক্ষ এই নিদারুণ বাস্তবতা উপলব্ধি করছে না ফলে ঝড় বৃষ্টিতে বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে গিয়ে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে থাকে এবং বহু মানুষের প্রাণহানি-হতাহতের ঘটনা ঘটছে। এছাড়াও ভারী বর্ষণে শহরে কৃত্রিম বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় এসব অরক্ষিত ও ছিড়ে যাওয়া তারের মাধ্যমে প্রাণহানি ঘটছে অহরহ। ঢাকা, চট্টগ্রাম কুমিল্লা সহ দেশব্যাপী বৈদ্যুতিক তারে বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণহাণি বর্তমানে মহামারি আকার ধারণ করেছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ কিংবা শতভাগ বিদ্যুতায়ন যদি হয় সরকারের সফলতা, বিপরীতে পুরনো ঝুকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুঁটি ও তার এখনো ব্যবহার করা নিঃসন্দেহে সরকারের অদূরদর্শীতা কিংবা দায়িত্বে অবহেলার সামিল। দেশব্যাপী একের পর এক মানুষের মৃত্যুর পরও ঝুঁকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারনের মাধ্যমে নতুন করে নিরাপদ বৈদ্যুতিক সংযোগ প্রদান না করায় এইসব মৃত্যুকে দূর্ঘটনা না বলে পরিকল্পিত হত্যাকান্ডও বলা যায়। একে তো ঝুকিপূর্ণ খুঁটি, তার উপর জনবহুল রাস্তার উপরে বৈদ্যুতিক তার অরক্ষিত থাকা কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনার অংশ। প্রাণঘাতি অরক্ষিত বিদ্যুতিক তার নিয়ে কর্তৃপক্ষের অবহেলার করুণ পরিণতি ভোগ করছে সাধারণ নাগরিকেরা।

ঝুকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুঁটি এবং জনবহুল রাস্তার উপর স্থিত তারের নিচে নিরাপত্তা জাল ব্যবহার না করা মিলিয়ে অতি গুরুত্বপূর্ণ বিদ্যুৎ এখন মানুষের জন্য মরণফাঁদ। অনেক এলাকাতে দেখা যায় নিরাপত্তার জন্য বৈদ্যুতিক তারের নিচে জাল দেয়া হয়েছে, কিন্তু অন্যান্য জনবহুল এলাকাতে নেই অর্থাৎ এক এলাকায় দেয়া এবং গুরুত্বপুর্ণ অন্য এলাকায় না দেয়া মানেই এটি স্পষ্ট অবহেলার অংশ। শুধু রাস্তার উপরে থাকা তারের নিচেই জাল নয়, রাস্তার পাশে অর্থাৎ ফুটপাতে থাকা বৈদ্যুতিক ঝুলন্ত তারের নিচে নিরাপত্তা জাল ব্যবহার জরুরী, কেননা ফুটপাত মানুষের চলাচলের জন্য। আর ঝড়-বৃষ্টির মৌসুমে স্বাভাবিক চলাফেরা করার সময়ে কোন মানুষ বিদ্যুৎ শকড হয়ে মৃত্যুবরণ করলে এর দায় রাষ্ট্রের, এটি কখনোই স্বাভাবিক দূর্ঘটনা হিসেবে বিবেচনা করার সুযোগ নেই।

সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রজেক্ট হাতে নিচ্ছে এবং বাস্তবায়ন করছে। শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা গেলেও পুরনো বিদ্যুতিক খুঁটি ও তার পরিবর্তনের জন্য কোন প্রকল্প নেই। যার কারনে একের পর এক বৈদ্যুতিক হত্যাকান্ড ঘটছে দেশব্যাপী। এইরূপ অবস্থায় দেশব্যাপী স্থিত সকল পুরাতন ও ঝুকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুঁটি ও তার অপসারণ করার মাধ্যমে নতুন করে বৈদ্যুতিক খুঁটি ও নিরাপদ হিসেবে বিবেচিত তারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ এবং নতুন ভাবে স্থাপিত বৈদ্যুতিক খুঁটিতে স্থিত তারের নিচে নিরাপত্তা জাল ব্যবহার নিশ্চিত করার মাধ্যমে ঝড় বৃষ্টির দিনে কিংবা যেকোন প্রকার অনাকাঙ্খিত বৈদ্যুতিক দূর্ঘটনারোধ করা সময়ের দাবী। অন্যথায় অতি প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎই মানুষের মৃত্যুর কারণ হবে বারবার।

 

শিক্ষার্থী
ডিপ্লোমা ইন জার্নালিজম
বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক মিডিয়া (বিজেম)
কাটাবন, ঢাকা

 

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial