ঢাকাসোমবার , ২৩ অক্টোবর ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

আলোচিত অনলাইন আদালত “ক্যানসেল কালচার”

মৃধা প্রকাশনী
অক্টোবর ২৩, ২০২৩ ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বহুল আলোচিত বিষয় ” ক্যানসেল কালচার”। এর উৎপত্তি ক্যানসেল বা বাতিল শব্দ থেকে। মূলতঃ ক্যানসেল কালচার বলতে বোঝায়, সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য নয় এমন কোনো কার্যক্রম বা দৃষ্টিভঙ্গির কারণে কোনো নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে প্রকাশ্যে বয়কট, প্রত্যাখ্যান বা অসহযোগিতার ঘটনা ও প্রথা। একজন সেলিব্রিটি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, দল ও গোষ্ঠীকে ক্যানসেল করার মানে তাদের আদর্শ এবং কর্মকান্ডের বিরোধিতা করা। তাদের কোনো কার্যক্রমে যদি সাধারণ জনগণ অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন, তখন থাকে সমর্থন করা থেকে বিরত থাকে।
বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রায় সবাই একে অন্যজনকে বিচার করি। একজনের কৃতকর্মের আরেকজনের অপছন্দ হলেই তাকে সমর্থন করিনা, অনলাইনেই বিভিন্ন কুৎসা রটনা করি। তাই ক্যানসেল কালচার হয়ে উঠেছে এক প্রকার অনলাইন আদালত।
ক্যানসেল কালচার এর সবচেয়ে বেশি প্রভাব চলচিত্র অঙ্গনে। চলচিত্র অভিনেতা, অভিনেত্রী বা পরিচালককে তাদের কাজ বয়কট করার মাধ্যমে ক্যানসেল কালচার এর বহিঃপ্রকাশ ঘটে। একজন লেখকের বই পড়া ও প্রচার করা থেকে বিরতি দেওয়াও এর অন্যতম উদাহরণ। বর্তমানে রাজনীতিতেও বহু আলোচিত এই ক্যানসেল কালচার। বিরোধী মতাবলম্বী হলেই তাকে রাজনীতি চর্চার ক্ষেত্রে নানা বাধা প্রদান করা হয়। এটাও এক ধরনের ক্যানসেল কালচার যার মাধ্যমে রাজনীতি থেকে বাহিরে রাখা হয়‌। তবে ক্যানসেল কালচার এর ভালো খারাপ দুটো দিকই রয়েছেন। কেউ মনে করছেন এই কালচার এর মাধ্যমে ব্যক্তি, গোষ্ঠী তাঁর কর্মকাণ্ডের জন্য জবাবদিহি করতে হয় আবার কেউ মনে করছেন এটি একপ্রকার শাস্তি। ক্যানসেল কালচার এর মাধ্যমে ব্যক্তি, দল ও গোষ্ঠীর ক্যারিয়ার হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে।
এই ক্যানসেল কালচার এর শিকার অনেকেই। যেমন বিখ্যাত হ্যারি পটার সিরিজের লেখিকা জে কে রাউলিং ট্রান্সজেন্ডারদের একটি আন্দোলনের বিরোধিতা করায় তাকে অনেক সমালোচনা এবং সমকামী বিরোধী বলে আখ্যায়িত করা হয়। এতে করে রাউলিংয়ের হ্যারি পটার সিরিজ দেখা এবং পড়া থেকে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নেয়। যা ক্যানসেল কালচার এর একটি অন্যতম উদাহরণ।
পশ্চিমা বিশ্বে ফিলিস্তিনের পক্ষে কোনো কথা বললে চাকরি হারাতে হয়, সামাজিকভাবে বয়কট এবং হয়রানির শিকার হতে হয়। এভাবে বাংলাদেশেও ক্যানসেল কালচার প্রতিটি ক্ষেত্রে দৃশ্যমান। বন্ধুবান্ধব, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সমাজ, রাজনীতি, চলচিত্র অঙ্গন থেকে শুরু করে প্রতিটি সেক্টরেই এই কালচার উপস্থিত। বন্ধু-বান্ধব মহলে আপনার নিজস্ব মতামত ও ধ্যান ধারণা এবং আচার আচরণ যদি তাদের সাথে সাংঘর্ষিক হয়, তখন আপনিও ক্যানসেল হয়ে যাবেন। ক্যানসেল কালচার এর ভুক্তোভুগী হবেন। বাংলাদেশের রাজনীতিতে ক্যানসেল কালচার বিরাট প্রভাব বিস্তার করছে। যেভাবে দলের অভ্যন্তরে কেউ বিরোধী মত প্রকাশ করলেই তাঁকে বহিস্কার করা হয়, ঠিক তেমনি ভাবে বিরোধী মতকে উপেক্ষা করা এবং সেটির বিরুদ্ধে অযাচিত ব্যবস্থা নেওয়াও ক্যানসেল কালচার এর অন্যতম উদাহরণ।
আমেরিকার পিউ রিসার্চ সেন্টারের একটি জরিপে দেখা যায় প্রায় ৫৮% মানুষ মনে করেন, ক্যানসেল কালচার এর মাধ্যমে ব্যক্তি গোষ্ঠী ও দল কে জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায়। ফলে তাঁরা অস্বাভাবিক কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করে। আর ৩৮% মানুষ মনে করেন ক্যানসেল কালচার এর মাধ্যমে যারা বয়কট, অসম্মান ও হয়রানির শিকার হন, তারা আসলে এগুলোর যোগ্য নয়। তাদের কে অনলাইনে অন্যায়ভাবে বিচার করা হয়। তাদের ক্যারিয়ার ধ্বংস করা হয়। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় আনিত অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট হয়ে থাকে।
এই ক্যানসেল কালচারে পশ্চিমা বিশ্ব সবথেকে বেশি আক্রান্ত। ক্যানসেল কালচারের ফলে অধিকাংশ সময়ই লঘু পাপে গুরু দন্ড পেতে হয়। ফলশ্রুতিতে অনেকেই স্বাধীনভাবে নিজের মতামত দিতেও ভয় পায়। বিভিন্ন ট্যাগ পেয়ে ক্যারিয়ার ধ্বংসের ভয়ে অনেকেই নিজের চিন্তাভাবনা প্রকাশ করতে পারে না। ক্যানসেল কালচারের এমন অপব্যবহার এর ফলে অনেক সেলিব্রিটি এর বিরোধিতা করেছেন। কিছুদিন আগে এলন মাস্ক এক টুইটে বলেন, ‘cancel cancel Culture’ অর্থাৎ ক্যানসেল কালচারকেই ক্যানসেল করে দিন।
মোদ্দাকথা, আলোচিত এই ক্যানসেল কালচার একইসাথে সমালোচিতও। আমাদের কর্তব্য এই কালচার এর অস্বাভাবিক বিস্তৃতি রোধ করা তবে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর কার্যক্রমকে জবাবদিহিমূলক করার জন্য এই কালচার এর যথাযথ প্রয়োগ ঘটাতে হবে। কারো ক্যারিয়ার ধ্বংসের জন্য যেনো এই ক্যানসেল কালচার এর অপপ্রয়োগ এবং অপপ্রচার না হয়।
আল আমিন
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম এর সদস্য
Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial