ঢাকামঙ্গলবার , ১ আগস্ট ২০২৩
  • অন্যান্য
  1. আইন
  2. ইতিহাস
  3. ইসলামী সঙ্গীতের লিরিক্স
  4. কবিতা
  5. কিংবদন্তী কবিদের কবিতা
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প
  9. চিঠিপত্র
  10. জনপ্রিয় বাংলা গানের লিরিক্স
  11. তারুণ্যের কথা
  12. ধর্ম
  13. প্রবন্ধ
  14. প্রযুক্তি
  15. ফিচার

ব্রডের শুরুর গল্প: ৬ ছক্কা নয়, ম্যাচসেরায় শুরু!

জুবায়ের আহমেদ
আগস্ট ১, ২০২৩ ৮:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন ইংলিশ কিংবদন্তী পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড। ব্রডের ক্যারিয়ারের সফলতা বুঝাতে গিয়ে আমরা অনেকেই ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে যুবরাজের কাছে ৬টি ছয় হজম করা থেকে শুরু করে ৬০০ (৬০৪) উইকেট শিকারের কথা বলি।

ব্রডের শুরুর গল্পে ৬টি ছয় হজম করার কথা বলা হলেও ব্রড এর আগেই নিজের জাত চিনিয়েছেন ইংলিশ দলের হয়ে, ফলে ৬টি ছয় প্রভাব পড়েনি তার ক্যারিয়ারে এবং পারফরম্যান্সে।

ইংলিশ দলে যখন স্টিভ হার্মিসন, এন্ড্রো ফ্লিনটফ, সাজিদ মাহমুদ এবং তখনকার সময়ে এন্ডারসনের মতো তরুণ পেসারের সময় চলছে তখনই ২৮ আগষ্ট পাকিস্তানের বিপক্ষে টি২০ ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু ব্রডের। অভিষেক ম্যাচে ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ২ উইকেট শিকার করেন।

এর দুইদিন পর ৩০ আগষ্ট কার্ডিফে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক। পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ৩ উইকেট বেস্টে মোট ৫ উইকেট শিকার দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয় ব্রডের।

২০০৭ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে উইন্ডিজের বিপক্ষে খেলার সুযোগ পান। পুরো বিশ্বকাপে একটি ম্যাচই খেলেন ব্রড। বিশ্বকাপ শেষে উইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৩ উইকেট বেস্টে মোট ৫ উইকেট শিকার করেন।

উইন্ডিজ সিরিজ শেষেই ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৭ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে শুরু হয় ব্রডের নিজেকে প্রমাণের পালা। সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে ম্যানচেস্টারে বল হাতে দিনেশ কার্তিক, যুবরাজ সিংহ, অজিত আগারকার ও রমেশ পাওয়ারের উইকেট শিকারের পর ব্যাট হাতে দলের হয়ে কঠিন বিপর্যয়ের সময় ৭৩ বলে ৪৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে জয়ী করে ম্যাচসেরা হন। এই ৪৫ রানের ইনিংসটি ওয়ানডেতে ব্রডের সেরা ইনিংস হিসেবে থেকেছে।

৭ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ ইংল্যান্ড ৪-৩ ব্যবধানে জয়লাভ করে। বল হাতে ৯ উইকেট শিকারের পাশাপাশি ব্যাট হাতে ৮৪ রান করেন ব্রড।

জাতীয় দলের অভিষেক অভিষেকের প্রায় এক বছরের মধ্যে জাতীয় দলের পারফর্মার হয়ে উঠার মধ্যেই ২০০৭ সালের টি২০ বিশ্বকাপে ভারতের সাথে ম্যাচে যুবরাজ সিংহ ৬টি ছয় হাঁকানোর আগে জাতীয় দলের হয়ে ৭টি২০ ম্যাচে ৯ উইকেট শিকার এবং ওয়ানডেতে দলের হয়ে নিজেকে প্রমাণের কারণেই ঐ ম্যাচে ওভারে ৬টি ছয় হজম সহ ৪ ওভারে ৬০ রান দিলেও ব্রডের ক্যারিয়ারে এটি তেমন প্রভাব পড়েনি।

বিশ্বকাপে বাজে বোলিংয়ের পরের মাসেই শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে এসে ৫ ম্যাচে ১১ উইকেট শিকার করেন এবং এই সফরের টেস্ট সিরিজে ৯ ডিসেম্বর ২য় টেস্টে ব্রডের অভিষেক। সেই থেকে সাদা পোষাকের পথচলা শুরুর পর গতকাল থামলেন টেস্ট ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ও সফল পেসারের তকমা গায়ে মেখে।

Please follow and like us:

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial